কৃত্তিবানবিমর্জিনী বা! ভুবন্শেরী।।

৩১

ভুবনেশ্বর মন্দিরের ম্যানেজার

আ্গাগতি সুখোপাধ্যায়-

প্রণীত।

কলিকাতা ৭৬ নং বলরাম দে সীট, মেট্কাফ্‌ প্রেলে মুদ্রিত

১৩৪৪ |

| ২০ | দা শি

যিনি সদ] কার্ধ্য-সমুদ্রে ভাসমান হইয়াও সাহিত্য-সেবায় সতত নিরত সর্বদা জুখসাধনসামগ্রীপরিবেষ্টিত থাকিয়াও সাহিত্যসেবীর স্থুখলাভে বাগ্র, বাহার গুণে আকৃষ্ট হইয়৷ লক্্মীসরন্বতী সাপত্ব্যবিদ্বেষ পরিত্যাগ পুর্ব্বক একত্র বিরাজিত,

এই ক্ষুদ্র ধর্নগ্রন্থখানি

| সেই উদ্দারকীর্তি পরমনিষ্ঠাবান্‌ স্বধন্মপরা়ণ হিন্দুনরপতিকুলাবতংস মহারাজাধিরাজ দ্বারবঙ্গাধীপ গ্রীল শ্রীযুক্ত রামেশ্বর সিংহ বাহাছুর মহোদয়ের প্রাতঃম্মরণীয় নামে অনুরাগ সম্মান সহকারে উৎসর্গা কৃত হইল।

নাট্রটোলিখিত বযভিিগণ

পুরুষগণ |

যযাঁতি- যাজপুলের বাজ বিদুষক- বাজান সখ!

হর -_- নন্দী__ ভঙ্গী-__- |

স্ীগণ উমা-_-_-ভগবত্তী-_ আন বিজয় লানী__-যযাতির জী প্রমদ1-_--বানীর সহচব

কিবণ-___ তর

ভূমিকা

হিন্দু মাত্রেই পুরীধামে শ্রী্ীজগন্নাথ দেব ভূবনেশ্বরধামে শ্রীশ্রীভূবনেশ্বর দেবকে দর্শন করিতে আইসেন। ভুবনেশ্বর ধামের সমস্ত বৃত্তান্ত জানিতে অনেকে উৎসুক হন। গ্রন্থকার একমাত্র পুরাণের সাহায্যে এবং প্রায় বসর এখানে থাকিয়া স্থানীয় বিষয় যতদূর অবগত হইতে পারিয়াছেন, ততদূর এই দামান্য পুস্তকে নাট্টাকারে লিখিয়াছেন। আশ! করি, পাঠকগণ আমার দোষের ভাগ পরিত্যাগ পূর্বক পুস্তকখানি পাঠ করিয়। আনন্দিত হইলে বাধিত হইব।

শ্রাহ্র্গাগতি মুখোপাধ্যায়

কৃতিবান-বিমর্ষিনী

বা ভূহম্য০ম্ম্গ্রল্্রী

প্রথম অঙ্ক

প্রথম-দুশ্খা | কৈলাসধাম। উমা॥ দেব এই পৃথিবী মধ্যে এমন মনোরম স্থান কোথায় আছে ষে স্থানের দৃশ্ত অতি সুন্দর এবং আপনার তপন্ত! করিবার উপযুক্ত

হয়। শ্রিয়তমে, এই কৈলাস সদৃশ স্থান পৃথিবী মধ্যে একটিমাত্র আছে, কিন্তু সে স্থান জনশূন্ত এবং নিবিড় বনলতা প্রভৃতির দ্বার! সমাচ্ছন্ন।

কৃত্তিবাস-বিমদ্দিনী বা! ভুবনেশ্বরী

উমা 'প্রাপনাথ, এমন মনোহর স্থান জনমানব শুন্ত কি জন্ত ? সে স্থানে কি কখন কোন মানব ব! জন্তর বাস.ছিলন ?

হর। প্রিয়তমে, সে স্থান এত রমণীয় যে আমার বাঞ্চ হয় আমর! যেরূপে এই কৈলাস ধামে বাস করিতেছি সেইর়প স্থন্দর ভাবে তথায় থাকি; কারণ তথায় বৃক্ষ, লতা পুষ্পারদীর এরূপ শোভা এবং মনোহর নগন্ধ যে, তাহ! বর্ণনা! কর! যায় না; যেন চিরবসস্ত তথায় বিরাজ করিতেছে, তথাকার জলবায়ু অতিশয় স্থাস্থাপ্রদ ; কারণ স্থান পর্ধ্বতময় কিন্তু জনশুন্ত .

উমা। নাথ, যদি সেশ্বান এমন স্ুজ্জর তবে, তথায় মানবের বা জস্তগণের বাস নাই কেন? আমার ইচ্ছ। হয় সে স্থানে থাকিয়। চিরদিন আপনার সেব! পুজা করি।

হর। প্রিয়ে, তথায় জীব জন্তর বাস নাই তাহার কারণ সে স্থানে বৃত্তি এবং বাস নামক ছুইটি দুর্দাস্ত রাক্ষন বাস করে। যে মানব বা জস্ত যখন সে বন মধ্যে গ্রবেশ করে, তখনই উহারা ভাহাদিগকে ভক্ষণ করিয়া ফেলে। সেস্থানে গোপন ভাবে আমি আমান ইষ্টদেবতার আরাধনা করির়। থাকি ; একথা আমি পুর্বে কাহার নিকট প্রকাশ করি নাই। কিন্তু তোমার নিতাস্ত অনুরোধে কেবল তোমারই নিকট প্রকাশ করিলাম।

উষ্/। নাথ, যে স্থানে আপনি থাকিয়া তপন্ত। করেন সে স্থানে যে জীব-হিংসা হয়, ইহ! বড় আশ্চর্যের এবং ছুংখের বিষয় | এই যে কৈলাসধাম, .এম্থানেত নানা'প্রকার হিজর জন্তু বাস করিড়েছে ; কৈ. তাহারা কাহারও হিংদ! করে না। সর্প ময়ূরের সহিত, ব্যাস্ত হরিণের সহিত এবং অন্তান্ত ' জন্তগথ একত্র মিলিয়া পরম্পরে 'ভ্রাতার সায় ক্রীড়৷ করিতেছে।

১০০০০ চর

হর। পরিয়ে, তুমি যাহ! বলিলে তাহা! সকলই সত্য; কিন্তু সেই রাক্ষস এরূপ ছার্দান্ত হইয়া উঠিয়াছে যে, "তাহার! এখন দেবতাদিগের উপর অত্যাচার করিতে কুষ্টিত হয় না।

উমা নাথ, তবে আপনি এন্নপ পাপাচারী রাক্ষসুয়ের অত্যাচার সহা করিতেছেনকেন? অবিলম্বে উহাদের বধ সাধন করা উচিত হইতেছে

হর। জীবিতেশ্বরি, পূর্বে উর! আমার বড় ভক্ত ছিল এবং বহুকাল৷- বধি আমার পৃজ! করিয়া বর লাভ করিয়াছে? সুতরাং আমি উহাদিকে বধ করিতে ইচ্ছ! করি না; এখন উহাদের তমোগুণ প্রবল হইয়াছে; সে কারণ ধর্ম অধন্ বিচার উহাদের নাই

উমা। নাথ, উহার যতই অত্যাচারী হউক না কেন, 'আমার কিছুই করিতে সক্ষম হুইবেক না) আমার একান্ত ইচ্ছ হইয়াছে আমি নুন্দর স্থানে থাকিয়া আপনার সেব! পৃজ! করিব।

হর। প্রিয়ে, ভূমি ভূবনমোহিনী, যদি কখন ছুবু স্ব রাক্ষসন্য় তোঘাকে অবলোকন করে, তবে তাহারা কামে উন্মত্ত হইয়! তোমাকে পাইবার চেষ্ট। করিবে ; তখন তুমি একাকিনী কি করিবে ?

উমা। নাথ, ভ্রিতুবনে এমন কেহ নাই যে আমাকে পাপ চক্ষে দেখে, যে হতভাগ্য আষাকে পাপ নয়নে দেখিবে, তাহার অবস্থ! শুস্ত নিশুস্ক দৈত্যঘয়ের ন্যায় হইবে।

হর। পরিয়ে, সেই জন্তই তোমাকে বলিতেছি তথায় তোমার যাইবার আবন্্রক নাই; আমার অনুরোধ যাইতে ক্ষান্ত হও; যদি তোমার অন্ত কোন অভিলাষ থাকে, আমার নিকট প্রকাশ করিয়! বল) কদামি এখনই তাহা! পুর্ণ করিতে চেষ্টা করিব।

উমা! নাখ, আপনার শ্রগরণে আমার এই মিনতি, মআমাগ বড় লাখের জাশায় আপনি বাধ! দিবেন না!।

কৃত্তিবাস-বিমর্দিনী বা ভুবনেশ্বর

হর। প্রিয়ে, যখন তোমার একান্তই সে স্থানে থাকিবার মানস হইয়াছে, তখন আমি আর বাঁধ! দিব না। দেখিও যেন কোন বিপদ ঘটে না) থুব সাবধানে প্রচ্ছ্নভাবে তথায় ভ্রমণ করিও

ছিতীয় দৃশ্য নবর্ণকোট পর্বত।

উমা। আহা এই স্থানটি কেমন সুন্দর, এই স্থানে বনলত! এবং বৃক্ষাদিতে কেমন শোভা পাইতেছে ; পক্ষিগণের সুস্বরে মনপ্রাণ মোহিত হুই- তেছে, যেন কর্ণকুহরে উহার! অমৃত বর্ষণ করিতেছে ভ্রমরগণ মধু- পানে মত্ত হইয়। সদা গুন্‌ গুন্‌ রবে গান করিতেছে আহা এমন সুঙার স্থানে থাকিয়৷ যদি নাথের পুজা! সেব৷। করিতে না পাই, আমার জন্মই বৃথা ; কিন্তু বড়ছুঃখের বিষয়, হেন স্ুনার স্থানে কোন মানব বা জন্তর বাস নাই। নাথের প্রমুখাৎ অবগত হইয়া- ছিলাষ, দুর্দীস্ত কুত্তি বাস নামক রাক্ষসঘ্ব় সমস্ত জীব জন্তকে বধ করিয়াছে নাথ যে বলিয়াছিলেন, তিনি গোপনভাবে এই স্থানে যৌগ করিতেছেন, কৈ বছ অন্বেষণ করিয়াও তাহার সাক্ষাৎ পাইলাম না; তবে কি আমার অদৃষ্ট তীহার শ্রীচরণ পৃজ। কর! ঘটিবে না ? '€ মনে মনে চিস্তা করিয়া ) নাথ গব্যরস নবনীত বড় ভাল বাসেন ; উহা! দিয়! পূজ। রিলে তাহার বড়ই তৃত্তিবোধ হয় ; অতএব লোকালয় হুইতে ধেনু সংগ্রহ করিয়৷ আনি।

( গ্রই স্থির করিয়া! বহু দূরদেশ হইতৈ. কয়েকটি দুগ্ধবতী গাভী সংগ্রহ করিয়! আনিয়া বনমধ্যে ছাড়িয়া দিলেন এবং এরূপ মায়া প্রকাশ

প্রথম 'অন্ক।

করিয়া ধেন্ু চরাইতে লাগিলেন যে গাতীগণকে এবং তাহাকে রাক্ষস ঘ্বয় দেখিতে পাইল না। কিছুদিন এইরূপে ধেন্ু চরাইতে চরাইতে এক দিবস তিনি দেখিতে পাইলেন, যে একটি ছুধবতী গাভী নিবিড় জঙ্গল মধ্যে প্রবেশ করিয়া! পশ্চাৎ দিকের একটি পা তুলিয়া আছে? ইহাতে ভগবতীর মনে বিশন্ময়ের উদয় হওয়াতে অতিকষ্টে জঙ্গলমধ্যে প্রবেশ করিয়। দেখিলেন যে এক খণ্ড শিলার উপর গাভী দুগ্ধ দান কারতেছে, শিল! দেখিয়াই তিনি চিনিতে পারিলেন যে, তাহার হৃদয়বল্পভ এ্রন্প ভাবে যোগে রত আছেন, তখন তিনি মহেশের স্তব করিতে লাগিলেন )। হে যোগময় আপনাকে নমস্কার হে অনার্দিলিঙ্গ আপনাকে নমস্কার হে আশুতোয আপনাকে নমস্কার ; হে ব্রিশূলী আপনাকে নমস্কার হে অচিস্ত্যরূপ আপনাকে নমস্কার হে ভবভয়মহারী আপনাকে নমস্কার। হে মৃত্যুঞ্জয় আপনাকে নমস্কার হে দম্বাময় আপনাকে নমস্কার হর। দেবি, তোমার স্তবে আমি প্রীতি লাভ করিয়াছি, তুমি বর চাও। উমা হে প্রভু, হে অনাথনাথ, যখন আপনি আমায় বর দিবার জন্ত প্রতিশ্রুত হইলেন, তখন আমায় এই বর দিন যেন এখানে ধাকিয়া চিরদিন আপনার সেবাপুজা। করিতে পারি। হর। দেবি, তোমার মনোবাঞ্ছ! পূর্ণ হউক।

১৬ কৃত্তিবাস-বিষর্দিনী 'বা ভূবনেশ্বরী তৃতীয় দৃশ্ট

8 অরণ্য।

উমা। বহু দিন অতীত, হইল, কোন জন্তকে এই অরণ্যে দেখিতে পাই নাই, অন্ত.প্রথমেই এই হরিণ হরিণীকে দেখিতে পাইলাম। আহা উহাদের শরীরের গঠন কেমন সুন্দর, আনন্দে কেমন নৃত্য করিতেছে ; বোধ. হয়, রাক্ষসত্বয় উহ্বার্দিগকে অনুগ্রহ করিয়া ভক্ষণ করে নাই ? এই- রূপ নিরীহ জস্তকে কাহার বধ করিতে ইচ্ছা হয়। (হুঠাৎ সেই সময় রাক্ষসঙ্থয় আসিয়! মগ ছুইটিকে ধরিয়া লইয়া! গেল )। রে হুরাত্মাগণ তোদের কি মায়! দয়া নাই? তোর! কি কারণে নিরীহ জন্তদ্বয়কে বধ করিবি ? উহার! €তোর্দের কোন অনিষ্ক করে নাই? না আর তোদের অত্যাচার আমি সহ করিব না।

( এই ঘটনার কিছুদিন পরে তগবতী প্রকাশ্তভাবে গোপকন্তার বেশ ধারণ করিয়া গোচারণ করিতে করিতে দূরে দেখিতে পাইলেন যে এঁ রাক্ষসহয় এক স্থানে, বনিয়৷ পরস্পর কথাবার্তী করিতেছে )।

কৃত্তি। দেখ ভাই, বহুকাল অতীত হুইল, এই স্তানে আমর! বাস করিতেছি এখানে ধত মানব.ও জন্তু ছিল, সমস্তই আমাদের উদরে গ্রাবেশ করি- যাছে। আমাদের ভয়ে বনের বহুদূর পর্য্যন্ত কোন জীব বাস করেনা আজ কেন এই নারী এবং গাঁভীগণ এখানে আসিয়া! বেড়াইতেছে।

বাস। দাঘা,॥ আমার বোধ হয় রমণী ভ্রমক্রমে গাভীগণ সহ এই অরণো প্রবেশ করিয়াছে। .আজ আমাদের সুদিন তাই এইরূপ উপাদেয়, খাদ্ভ আমাদের নিকটেই আলিয়া উপস্থিত হইয়াছে

কৃত্তি। দেখ বাস, আঞ্জ আমার মন প্রথম হইতেই বিশেষ চঞ্চল হইয়াছে, চারিদিকে যেন অমঙ্গলের চিহ্ন দেখিতে পাইতেছি ; ইহার কারণ কি?

প্রথম অঙ্ক ।'

০০

বাস। -দাদা,ও সব কিছুই নয়, আমাদের আবার অমঙ্গল কিসে হবে আমরা ত্রিশূলীর বরে অমর হইয়াছি। ইন্র, চন, বায়ু বরুণ, যম প্রভৃতি তেত্রিশ কোটা দেবত! আমাদের গ্রতাপে ভীত। দাদা, আমার আর বিলম্ব সহ্‌ হইতেছে, না ; চল হুজনে গরিয়! রমণী এবং গাভীগুলিকে ভক্ষণ করি; কারণ অনেক দিন হইল, অমন স্তন্দর আহার আমরা পাই নাই।

রুত্তি। দেখ ভাই অত ব্যস্ত হইও না; চল অগ্রে আমরা যাইয়া রমণীর পরিচয় জিজ্ঞাসা করি) খাস্ত আমাদের আয়ত্ের মধ্যে আছে; পলাই- বার উপায় নাই! (উভয়ে রমণীর নিকট উপস্থিত হইয়া ) সুন্দরি, তুমি কে? তুমি কি ইন্দ্রের ইন্দ্রাণী অথব৷ স্বর্গের নর্তকীদের মধ্যে রস্ত!, উর্বশী বা মেনক! প্রভৃতির মধ্যে কেহ হইবে? কারণ তোমার রূপ অঙ্গের গঠন দেখিয়া কখন মানবী বলিয়! বোধ হয় না) অতএব ভীত না হুইয়৷ আমাদের নিকট তোমার প্ররূত পরিচয় দাও।

উমা। ( গোপকন্তা বেশে) হে বীর দ্ধ! আমি তোমাদিগকে দেখয়। বিশেষ ভীত হইয়াছি, যদি অভয় দান কর তাহ! হইলে তোমার্দিগকে আমার পরিচয় দি।

বাস। কুরঙ্নয়নে, তোমার কোন ভয় নাই; তুমি নির্ভয়ে আমাদের নিকট তোমার গ্রকৃত পরিচয় দিতে পার।

উম! হে বীরশ্রেষ্ঠ! আমি ইন্দ্রাণী বা! ্বর্সের নর্ভকীদিগের 'মধ্যে কেহ নহি; আমি সামান্ত। মানবী, গোপবালা যাত্র। গাভী চরাইতে চরাইতে এই অরণ্য মধ্যে প্রবেশ করিয়াছি ; কিন্তু বহির্গমনের পথ খুজি পাইতেছি না ; অতএব দয়া করিয়া যদি বনের বাহিরে যাইবার পথ দেখাইয়া! দাও তাহ! হইলে আমি বড় বাঁধিত হুইব।

বাস। সুন্দরি, কেমন কথা বলিতেছ ? তুমি বদি আমাদের একটি

1৮ কৃত্তিবাস-বিসার্দিনী বা ভূবনেশ্বরী।

মাত্রউপকার কর, তাহ! হইলে আমর! তোমার চিরদিনের জং জন্য কেম দাস ক্ইক্স। খাঁকিব। উমা হছে বীর, আমি পামান্তা মানবী, আমার দ্বার! তোমাদের এমন কিপ্উপকার হইতে পারে, যাহার জন্য তোমরা বিনীতভাবে আমার নিকট প্রার্থনা! করিতেছ ? বাস। হুন্দরি, আমর! বাহুবলে স্বর্গ, মর্ত্য এবং পাতাল এই ত্রিভূবন জয় করিয়াছি ; কিন্তু বিনীত ভাবে কখন কাহারও নিকট কিছুই প্রার্থন! করি নাই ; কেবল তোমার অনুগ্রহের প্রার্থী উমা হে'বীর ঘয়, তোমাদের মনোভিলাধ কি আমার নিকট প্রকাশ করিয়া বল; যদি আমার ছার! তাহ! পূর্ণ হইবার হয়, অবস্ত তাহা ফরিব। ্‌ কত্তি। বরাননে, আমর! তোমার ভূবনমোহনী রূপ দেখিয়! মুগ্ধ হইয়াছি; আমা ছুই ভ্রাত।৷ আমাদের মধ্যে তোমার যাহাকে ইচ্ছা হয়, পতিত্বে বরণ কর ; এই আমাদের প্রার্থনা উমা। বীরশ্রেষ্ঠ! তোমাদের প্রস্তাব নিতান্ত অসঙ্গত) কারণ আমি পতিব্রতা, আমার স্বামী বিদ্যমান আছেন, অতএব তোমরা! হুরাশা পরিত্যাগ কর। কৃত্তি। কুরুজনয়নে, তুমি যাহা বলিলে, তাহা সত্য হুইতে পারে; কিন্ত আমর! তোমার রূপে এরূপ কামাতুর হইয়াছি যে, আমাদের প্রস্তাব কখন পরিত্যাগ করিবার নছে; যদি সহজে সম্মত ন! হও, তাহ! হইলে বলগ্রয়োগ করিতে কুষ্ঠিত হইব না; অতএব আমাদের ছুই ভ্রাতার মধ্যে যাহাকে অভিরুচি হয় বরণ কর। উমা।: হে বীরহ্য়,। যখন তোমরা কোন মতে আমার নিষেধ শ্রবণ ক্রিতেছ মা, তখন অগত্যা তোমাদের প্রস্তাবে আমাকে সম্মত হইতে

প্রথম অঙ্ক ৯৯

পপ পাপা ররর

হইবে, কিন্ত আমার একটি ব্রত আছে) তাহ! এরই, যে কেহ আমাকে সন্ধে করিয়া পঞ্চ ক্রোশ প্রদক্ষিণ করিতে পারিবেক, তাহাকেই আমি পতিত্বে বরণ করিব। যখন তোমরা উভয়েই আমাকে পাইবার জন্ত লালায়িত, তখন উভয়েই আমাকে স্কদ্ধে করিয়৷ এই পঞ্চ ক্রোশ প্রদ- ক্ষিণ কর, যদি ইহা! করিতে তোমাদের ইচ্ছা না হয়, তবে আমাকে আমার নিজ ভবনে যাইবার জন্ত এই অরণ্য হইতে বাহির হইয়া যাইবার পথ দেখাইয়া দাও।

বাস। মনোরমে, তোমার এই প্রস্তাব শুনিয়া! আমরা যে কি পর্যাস্ত আনন্দিত হইয়াছি, তাহ! প্রকাশ করিয়! বলিতে পারিতেছি না। তোমাকে স্কন্ধে করিয়া পঞ্চ ক্রোশ মাত্র ভ্রমণ করিব সামান্ত কথা ; আমরা এত বল ধারণ করি যে, যদি হিমালয় পর্বত বহন করি, আমাদের সামান্তমান্র ক্লেশ বোধ হইবেক না। আমর! আর ধৈর্য ধারণ করিতে পারিতেছি না, এই ছুই ভাইয়ে স্বন্ধ পাতিয়া দিলাম সত্বর উঠিয়! আমাদের মনোভিলাষ পূর্ণ কর।

উমা। হে বীরঘয়, তবে তোমর! তোমাদের মন্তক অবনত কর, আম তোনাদের স্কক্ধে দণ্ডায়মান হই।

কৃত্তি। কুরঙ্গনয়নে, এই আমরা স্বন্ধ পাতিয়! দিলাম তুমি উঠিতে আর বিলম্ব করিও না।

উমা এই আমি তোমাদের স্বন্ধে উঠিলাম।

দ্বিতীয় অঙ্ক

প্রথম দৃশ্য

প্রান্তর

কৃত্তি। ভাই বাস, আমি অতিশয় শ্রাস্ত হইয়াছি, এই রমণী এত গুরুতার বোধ হইতেছে যে, ইহাকে বহন করিবার ক্ষমতা আর আমার নাই ;) আমর! বড় বড় পর্বত বহন করিয়াছি, কিন্তু কখন এরূপ ক্লান্ত বা বলহীন হই নাই।

বাস। দাদা, আমার যে কিরূপ কষ্ট হইতেছে, তাহা! আর আমি কি বলিব, কেবল লজ্জায় আমি এতক্ষণ বলহীন হইয়াও নীরব ছিলাম। এই রমণী যে এত গুরুভার হইবে, তাহা! স্বপ্নেও ভাবি নাই, এক্ষণে ইহাকে পরিত্যাগ করা আমাদের উচিত হইতেছে।

উমা (৫ ক্রোধে ) রে পাপিষ্ঠদ্বয়,। তোরা বিন! দোষে মানব জন্তগণকে বধ করিল! এইস্থান অরণ্যরূপে পরিণত করিয়াছিস। তোরা ত্রিশৃলীর

সত

দ্বিতীয় অঙ্ক ১১

পপ টস কস

বলে বলী হইয়া, দেবতাদিগকে অবজ্ঞ! করিয়! - তাহাদের উপর অত্যা- 'চার করিতেছিম্‌্, তোদের পাপে এই বন্গন্ধরা' টলমল করিতেছে তোরা কামে উন্মন্ত ভুইয়া সতীর সতীত্ব নাশে' উদ্ভত হইয়াছিলি, তোদের আর নিস্তার নাই, এখনই তোদের বধ করিয়! স্বর্গ, মর্ত্য এবং : পাতালের জীব জন্তদিগের ভয় দূর করিব।

কৃত্তি। (ভয়ে) হে ভ্রিলোকামোহিনী তুমি কে? তোমাকে প্রথম দেখিবামাত্র আমার মনে সন্দেহ হইয়াছিল যে তুমি কখন মানবী নও তুমি আমাদিগকে মায়ায় মোহিত করিয়া আমাদের বল হরণ করিয়া এক্ষণে আমাদিগকে বধ করিতে প্রস্তত হুইয়াছ, কিন্তু যাহা মনে করিয়াছ তাহ! পারিবে না; কারণ আমর! দেবদেৰ মহাদেবের বরে অমর হইস্স'ছি।

উমা। রে 'পাপিষ্ঠগণ ! যদি তোর! দেবদেব মহাদেবের তত, তবে তোরা এরূপ পাপ কাধ্য কেন করিতেছিলি? যখন তোর! বিনা দোষে বহু প্রাণী বিনাশ করিয়াছিন সতীর সতীত্ব নাশে উদ্ভত হইয়াছিলি, তখন তোদের উপযুক্ত শাস্তি প্রধান করিব।

কৃত্তি। দেবি, যখন তুমি আমাদিগকে শাস্তি দিতে উদ্ভত হইয়াছ, তখন তৃমি সামান্ত। রমণী নহ; কারণ আমর! বাহুবলে এই ব্রিভুবন জয় করিয়ছি; অতএব আর ছলনা ন! করিয়া তোমার প্রকৃত পরিচয় দিয়! আমাদের সন্দেহ দূর কর।

উমা। রে রাক্ষসাধম, যখন তোরা! আমার প্ররূত পরিচয় জানিবার জগ্ত বিশেষ অনুরোধ আগ্রহ প্রকাশ করিতেছিস, তখন আমার পরিচয় শোন্‌। তোর! বার বলে বলী হইয়া শ্বর্গ, মত্ত্য পাতাল জয় করি- যাছিস, আমি তাহার অর্ধাঙ্গভাগিনী |

কুত্তি। দেবি! তুমি আমাদের গুরুপত্ী, তোমায় নমস্কার তৃমি এই

১২ কৃত্তিবাস-বিমন্দিনী বা ভূবনেশ্বরী |

রন্গাড প্রসব করিয়াছ তোমায় নমস্কার তুমি আস্ভাশক্তি তোমায় নমস্কার তুমি পুস্ত নিশুস্ত রক্তবীজ প্রভৃতি অন্থরদিগকে বধ করিয়া, তোমায় নমস্কার তুমি অচিন্ত্যরূপিণী, তোমায় নমস্কার তুমি আমাদের মাতা, অতএব আমাদের অপরাধ ক্ষম! কর।

উমা রেরাক্ষসদ্বয় আমি তোদের স্তবে তুষ্ট হইয়্াছি; অতএব তোদের কি মনোভিলাষ আছে, আমার নিকট প্রকাশ কর্‌।

বাস। হে দেবি। আপনি আমাদের মাতা অত এব অভয় দান দিয়! আমাদিগকে পরিত্যাগ করুন কারণ আপনার পদদলনে আমরা ব্লহীন হইয়া বিশেষ কষ্ট পাইতেছি, এমন কি আমাদের প্রাণ বহির্গত হুইবাঁর উপক্রম হইয়াছে এবং আমর! জীবজন্তগণকে বিনাশ করিয়া যে সকল পাপ উপাজ্জন করিয়াছি, তাহা যেন ক্ষয় প্রান্ত হয়।

উমা। হেরাক্ষসঘয়! যখন আমি প্রতিজ্ঞা করিয়া বলিয়াছি তোমা- দিগকে উপযুক্ত শান্তি দিব, তখন আমার বাক্য কখন মিথ্য! হইবেক ন|।

( এই কথা বলিয়া দেবী রাক্ষসঘ্বয়কে পদ দ্বার দলন করাতে উহারা পাতাল মধ্যে প্রবেশ করিতে লাগিল। দেবী যখন উহাদিগকে পরিত্যাগ করিলেন তখন দেখিতে পাইলেন যে উহার! পুনরায় উঠিতেছে তখন তিনি ১০৮ যোগিনীকে আদেশ করিলেন তোমর! সতর্কতার সহিত সর্বদা! এই স্থানে পাহারা দাও যেন রাক্ষসয় কদাচ পৃথিবীর উপরে না আসিতে পারে )।

যখন তোমাদের স্কষ্ধে আমি পদ দিয়াছি, তখন তোমাদের সমস্ত পাপ মোঁচন হইয়াছে ; আর এই স্থানে আমি পদ দ্বারা দলন করিয়া তোমাদের বল হরণ করিয়া পাতাল মধ্যে প্রবেশ করাইলাম ; এজন এই স্থান মহা তীর্থরূপে পরিণত হুইল; অগ্য হইতে ইছার নাম

_ দ্বিতীয় অন্ক। ১৩

শা পা শা শপ পি শন পতি পন নে পাশ শা পি শি পিচ শিপ তা পরি পচ পি আপ সর পর লী পাল

এদেবী-পান। হরা” হইল। (অনন্তর শ্রমে কাতর হইয়া উ্াদেবী দেবদেব মহাদেবের স্মরণ করিতে লাগিলেন। ) হে মহেশ, হে ভূতনাথ, হে ত্রিলোচন, হে বিশ্বেশ্বর, হে ত্রিশৃলী, হে আশুতোষ,

হে বিভূতি ভূষণ, হে অনাথনাথ, হে পশুপতি আমি বড় বিপদে পড়িয়। তোমার শরণ লইতেছি, আমার প্রাণ রক্ষা কর; তোমার দাসীর বুঝি প্রাণ যায়।

দ্বিতীয় দৃশ্য কৈলাশ ধাম।

নন্দী! হায় আমাদের কি ছুরদৃ্ট, আমাদের মা! আমাদিগকে ছাড়িয়া স্থানান্তরে গিয়াছেন এই কৈলাশ ধাম যেন শুন্তময় বোধ হইতেছে। এই স্থান আনন্দময়ীর কৃপায় সদাই স্থখময় ছিল, এখন এখানে থাকৃতে আর ইচ্ছা! হয় 1) মনে করি, ম! যেখানে আছেন, সেই থানে গিয়ে তার সেবা করে, মন প্রাণ শীতল করি।

ভৃঙ্গী। ভাইরে শুধু কি মা! বিহীন কৈলাশধাম, বাবাও যে কোথায় গেছেন তা বলতে পারি না; বোধ হয় আমাদের কাদাবার জন্য ছুজনে পরা- মর্শ করে কোথায় গিয়ে আমোদ আহলাদ কর্ছেন। আর আমরা সদাই কেঁদে কেঁদে বেড়াচ্চি।

নন্দী। দেখ ভাই! আমর! গাঁজা সিদ্ধিথেয়ে যেথায় সেথাস্গ ঘুরে বেড়িয়ে এক রকমে দ্রিন কাটাচ্ছি কিন্তু জয় বিজয়! সদাই কেঁদে মা মা বলে বনে বনে ঘুরে বেড়াচ্চে ; তাদের কষ্ট আর দেখতে

পারি না? ভৃঙ্গী।' 'আচ্ছ। দাদা! বাবা আমাদের ভোলানাথ তিনি ধেন কোথাম

১৪ কৃত্তিবাস বিমদ্দিনী বা ডুবনেশ্বরী যোগ কর্তে বসে আমাদের ভূলে গেছেন কিন্বা কোন ভক্তের প্রেমে বাধা পড়ে তাকে ছেড়ে আমতে পার্ছেন না; কিন্তু মা যেআমা- দের দয়াময়ী তবে তিনি আমাদের কষ্ট দিচ্চেন কেন?

নন্দী। ভূঙ্গি! তুই যা-বল্লি তা সত্য হতে পারে, কিস্তু আমার মনে নানা রকম ভাবনা উঠচে। আমার বোধ হয়, বাবা কোথায় বনে বসে যোগ করছেন, আর মা কোন দৈতা দানবের ' সঙ্গে যুদ্ধ কচ্চেন। এত্দন আমার একরকমে কেটে যাচ্ছিল, কিন্ত আজ যেন প্রাণ সদাই কেঁদে কেঁদে উঠ.ছে, যেন বিপদ্দে পড়ে ম! আমাদের ডাকৃছেন।

'জয়। বলি ভোর! ছুজনে কেবল সিদ্ধি গজ! থেয়ে বেড়ার, মা বাবা থে কোথায় গেলেন, তা আমাদের বল্লিনি; তোরা জানিন্‌ তাই মনের সুখে দিন কাটাচ্ছিস্‌, আর আমরা যে কাটা ছাগলের মত ধড় ফড় কচ্চি তা দেখেও দেখিস্না

"বিজয়! দিদি, যা! বল্লি তা ঠিক) তা-না হলে রোজ রোজ ওদের বলি তোরাত আমাদের মত স্ত্রীলোক নয় -যে' কোথাও ধেতে পারবিনি ; আর মা বাবাকে খুঁজে আনতে পার্বিনি, ত1 আমাদের কথা কানে করে না $ কেবল হুকুম চালান সিদ্ধি বেটে দে, গাজ। সেজে দে, এবার আর কখন যর্দি তোদের জন্য সিদ্ধি বেটে দি, কি গীঞ্া সেজে 'দি, আমায় বড় দিবিব রহিল

নন্দী। দেখ জয়া বিজয়! তোরা মেয়ে মানুষ ) মনে করিস্‌ মা বাবার জন্ত আমাদের : প্রাথে কষ্ট হয় না; আমাদের গ্রাপের ভিতর : যেকি হচ্চে, তা তোর! কি বুঝবি। মা» বাবা এখান থেকে হাওয়া অবাঁধ আমরা যেন মণি হার] ফণীর স্টার ছট, ফট. করে বেড়াচ্চি।

তৃঙ্গী | দাদ।! আমার প্রাণ অ।জ যেন কেঁদে কেদে উঠছে; আমার বোধ হয়,

মা! আমাদের কোথায় যেন বিপদে 'পড়ে, কাতরা হযে, আমাদের

দ্বিতীয় অঙ্ক ।. ১৫.

ভাকৃচেন, চল দাদ! চল, ম! যেথায় থাকুন্‌ না কেন,মার কাছে আমর! যাব।

জয়া। ওভূজি তুই বল্লি কি? মা আমাদের বিপদে পড়েছেন ? তবে আমাদেরও সঙ্গে করে নিয়ে চল, আমরা গিয়ে মার সেবা কর্ব।

নন্দী। জয়াদিদি! মা আমাদের কোথায় আছেন তা যদি ঠিক করে জান্তাম। তা হলে কি আমাদের দশ! হত তোর! আর ব্যাকুল হুস্নি, আমর! ছুভাই গিয়ে শীঘ্র মাকে খুজে নিয়ে আস্ব।

ভূঙ্গী। দাদ! আর দেরী কর্তে পারি না, আমার প্রাণের ভিতর কেমন কচ্চে, মা যেন নন্দীরে ভূঙ্গীরে বলে কীদ্চেন, তুমি যদি মাকে আন্তে না যাও তবে আমি চল্লেম।

বিজয়া ভূঙ্গী দাদা! তোমাদের আমি সিদ্ধি বেটে দেবোনা, গাজা সেজে দেবোনা বলেচি বলে কি মাকে আন্তে যাই বলে ফাকি দে পলাচ্চ ? একে মা, বাবা নাই তাই আমরা! কেঁদে কেঁদে বেড়াচ্চি, তবু তোমর| আছ বলে কোন রকমে দিন কাটাচ্চি ; তোমরা ঘি আমাদের ছেড়ে চলে যাও তা হলে আমরা এই পাহাড় থেকে পড়ে আমাদের পোড়। প্রাণ বার কোরবে|।

ভূঙ্গী। না দিণি, তোদের ফাঁকি দিয়ে আমর! পালাচ্চি না) মা বাবার জন্য আমাদের প্রাণ বড় অস্থির হয়েছে তাহাদের আন্তে যাচ্চি, যদি তারা এখানে আর ন! আসেন, ত1 হলে তারা যেখানে আছেন সন্ধান করে তোদেরও সেখানে নিয়ে যাব। মা বাবা যেখানে থাকবেন, সেই আমাদের কৈলাস ধাম।

বিজয়া।--দেখিস্‌ ভাই ! মা, বাবা যেমন আমাদের ভুলে আছেন, তোরাও গিয়ে ষেন আমাদের ভূলে থাকিসলে।

নন্দী ।--জায়া, বিজয়! দিদি, তোরা যে আমাদের ছোট বোন, তোদের কি

১৬. কৃত্তিবাস-বিমন্দিনী বা! ভুবনেশ্বরী।

কখন ভূলে থাকৃতে পারবে! ? হয় আমার! মা! বাবাকে সঙ্গে করে নিয়ে অস্বো, না হয় তারা! যেখানে আছেন সেই খানে নিয়ে যাব

তৃতীয় দৃশ্য প্রাস্তর।

হর।-_-এই জন্াই প্রিয়াকে বলেছিলাম যে স্থানে আসিবার প্রয়োজন নাই, আসিলেই রাক্ষস ছয়ের সহিত বিবাদ বাধিবার সম্ভাবনা, এখন দেখিতেছি তাহাই ঘটিয়াছে। প্রিয়া শ্রমে কাতরা হয়ে অচৈতন্ত হয়ে পড়েছেন, কৈ রাক্ষস দ্বয়কেও দেখতে পাচ্ছিনা» তাহার! আমার বরে অমর হয়েছে সুতরাং তাহাদের মৃতা নাই ; বোধ হয় তাহারা রণে পরাস্ত হয়ে স্থানান্তরে গিয়াছে ( উমাকে বাতাস করণ )

উমা।--হে প্রাণনাথ। কি করিতেছেন? রূপ কার্য কর! আপনার উচিভ হইতেছেন! ; কারণ আপনার সেবা! করা দাসীর কর্তব্য কার্য

হর। প্রিয়! এর সমস্ত-কথ! এখন থাক তুমি বিশ্রাম কর।

উম! ।--নাথ ! আমার শ্রাস্তি-দূর হইয়ছে ; কিন্ত আমি পিপাসায় অতিশয় কাতর! হইয়।ছি, কিঞ্ৎ বারি দানে আমার প্রাণ রক্ষা করুন।

হর। (স্থগত ) তাইত এই প্রান্তর মধো বারি কোথায় পাই? আচ্ছা পাতাল হইতে ভোগবতী গঙ্গার জল আনাইয়। প্রিক্াকে পান করাই ন! কেন? (ত্রিশুল ভূমির উপর বিদ্ধ করণ) প্রাণেশখরি ! এই বারি পান কর।

দ্বিতীয় অঙ্ক ১৭

গাজা

শা বসির জপ

রত ওসি

উম! ভ্বনাথ! বারি পাণে আমায় প্রাণ শীতল হঈয়।ছে, কিন্ত আমার মনে একটি নূতন অভিলাষ উদর হইয়াছে ; যদি অনুমতি দেন তাহা হইলে প্রকাশ করি।

হর।-প্রিয়ে! তোমার মনে আবার কি ভাবের উদয় হল, তাহাসসামায় প্রকাশ করিয়া বল, আমি তাহা পুর্ণ করিব।

উমা --প্রাণেশ্বর, আমি যেমন এই বারি পানে তৃপ্ত হইয়াছি, সেইরূপ ঘেন এই জলে সকল প্রাণী হাণ্ড লাভ করে।

হর।-_হ্ৃদয়েশ্বরিঃ তোমার কথ! শুনে এমন নময়েও আমি না হাসিয়। থাকৃতে পারলামনা ; কারণ এই বারি পান করে তুমি তৃপ্তি লাভ করলে, আর জগতের প্রাণী তৃপ্তিলাভ কিরূপে করবে, তা আমি বুঝতে পারিলাম না।

উম! ।--তুমি ত্রিগুণেশ্বর, তা ওসব কথ। বুঝতে পার্বে কেন? যখন আমার কাছথেকে শুনিবার ইচ্ছা হয়েছে, তখন আমাকে বলতেই হবে। "আমার অভিলাষ এই, যেন সমস্ত তীর্থের জল এখানে বিন্দু বিন্দু পরিমাণে চির কাল থাক, ঘে কোন প্রাণী এই জলে ভান্ত পূর্বক মান, তপণ বা এই জল পান করিবে অন্তিমে যেন তাহারা শিবলেকে সান প্রাপ্ত হয়।

হর। প্রিয়ে! ইহার জন্য এত অস্থরোর 2 আচ্ছা তোমার ইচ্ছা :পূর্ণ হইবে হে বুধষভ ! তুমি কোথায় আছ, আঁবলম্বে এখানে আসির! উপস্থিত হও।

বৃষভ। প্রভু! দাসকে কি জন্ত স্মরণ করেছেন ? আমায় কি করিতে হইবে আজ্ঞা করুন। -

হর। এই পৃথিবী মধ্যে যতগুলি তীর্থ আছে তাহাদিগকে বল্বে, যেন তাহারা অবিলম্বে এখানে আসিয়া উপস্থিত হয়, বে ন! আসিবে তাহাকে ভন্ম করিব।

ন্‌

১৮ কৃত্তিবাস-বিমদ্দিনী বা ভূবনেশ্বরী

বৃষভ। যথা আজ্ঞা! প্রভূ ! এই আমি চল্লেম।

নন্দী। ভূঙ্গি ভাই! আর আমি চলতে পারিনা, বাবা মাক পাইলাম না, আর আমাদের ছার জীবন ধারণ করিবার দরকার নাই; আমরা এই প্রান্তর মধ্যে অনাহারে প্রাণত্যাগ করিব ,

ভূঙ্গী। দাঁদা! আমাদের আর কি প্রাণ আছে? আমাদের যে প্রাণ দয়াময়ী মা, সেই প্রাণ পাবার জন্তই আমরা ঘুরে ঘুরে বেড়াচ্ছি। দাদা চুপ কর প্র যে আমাদের মা বাঁবা বসে কি কথাবার্ত। কচ্ছেন্‌; আহা মার যেন মুখখানি শুকিয়ে গেছে। মা যে আমাদের আনন্দময়ী, তার মুখ শুকিয়ে গেছে কেন ভাই ?

নন্দী। ভূঙ্গি রে! তবে কিআমরা এতদিন পরে আমাদের হারাধন পেলাম? কৈ মা কৈ বাবা কৈ, আমি যে চক্ষে কিছু দেখতে পাচ্ছিনা

ভূঙ্গী। দাদা ! ধের্য্য ধর, আমাদের ছুঃখের দিন গিয়ে এখন সুখের দিন এসে উপস্থিত হয়েছে, আমর! মা পেয়েছি, বাপ পেয়েছি) আমাদের সকল ছঃখ এখনই চলে যাবে।

হর। হাদয়েশ্বরি! দেখ দেখ আমাদের নন্দী ভূঙ্গী এদিকে আস্ছে, আহ! বাছাদের মুখ শুথায়ে গেছে

উমা! কৈ আমার নন্দী ভৃঙ্গী, কৈ আমার জয়া বিজয়া ?

নন্দী। মাগে! ! আমাদের কথ। কি তোর মনে আছে? যদি থাক্‌তে। ত| হলে কি আমাদের কীদায়ে এখানে লুকিয়ে থাকৃতে পার্তিস্‌। আচ্ছা মা যেন আমাদের পাষাণীর মেয়ে, তাই পাধাণী হয়ে ছিলেন; বাবা! তোমার হৃদয় তেমন নয়?

উমা নন্দী আমাকে আর লজ্জা! দিও না) তোমাদিগকে সঙ্গে করে না এনে আমি বিষম বিপদে পড়েছিলাম কৃত্তি এবংবাস নামক ছুই রাক্ষমকে জব্ কর্তে গিয়ে আমি নিজেই জব! হয়েছি'!

দ্বিতীয় অঙ্ক ১৯

ভ্লী।, মা! এখন সব কথা থাক, চল আর এখানে থেকে কাধ নাই, জয়া.বিজয়৷ মা মা বলে কেঁদে কেঁদে প্রাণ হারাতে বসেছে

উমা ভূঙ্গি! এখন আমার এখানে থাকবার ইচ্ছ! হয়েছে, এখানে থেকে প্রভুর সেবা পৃঞ্জ! করব বলে অনেক কষ্ট সহ করেছি; তুই ধা, আমাদের জয়! ব্জিয়াকে সঙ্গে করে নিয়ে আয়।

স্বঙগী। আচ্ছা মা তুই যদি একান্ত কৈলাস ধামে ন! যাবি, কাজে কাজেই আমাদেরও এখানে থাকৃতে হবে। যাই জয়া বিজয়াকে আনিগে। আহা তাহাদের ছঃখ আর দেখ তে পারিনা |

( প্রস্থান )।

বৃষভ। প্রভূ! সকল তীর্থই আপনার আজ্ঞায় সত্বর এখানে এসে উপস্থিত হবে, কেবল গোদাবরীর আস! হবেনা

হর। (ক্রোধে) কি সে স্ত্রীলোক হয়ে আমার আজ্ঞা অবহেলা করলে ?

বুষভ। প্রভু! রাগ কর্বেন না, সে কহিল, যে অম্পুষ্ঠা হয়েছে, সে কারণ তাহার আসা উচিত নয়

সর। আচ্ছ। আমি ধ্যান করিয়া দেখি, তাহার কথ প্রকৃত কি না? ( ধ্যানকরণ ) কি পাগীরসি, আমার সহিত প্রতারণা তুই যেমন নিজ মুখে অন্পৃশ্ঠ। বলে প্রকাশ করিয়াছিস্‌ সে কারণ চিরদিনের জন্য অস্পৃশ্ঠ। থাকিবি।

গঙ্গা, যমুনা, বৈভরণী, সরম্বতী প্রভৃতি তীর্থ?

গঙ্গাদি। প্রভূ! আপনার আদেশে দাসীরা আসিয়! উপস্থিত হইয়াছে, কি করিতে হইবে আজ্ঞা করুন ! |]

হর। তোমাদের আগমনে আমি যারপর নাই মস্ত হইয়াছি; অতএব তোমরা চিরকাল পবিত্র থাকিবে, তোমাদের বিন্দু বিন্দু অংশ এই

পপ স্বপ্নও পপ পা সি হল লা পিউ

২০ কৃত্তিবাস-বিমন্দিনী বা ভুবনেশ্বরী।

সপ

শপ ররর উর রস হি সস ইউ বইপত্র

সি

স্থানে থাকিবে; এই জলে যে কেহ ভক্তি পূর্বক নান তর্পণাদি করিবে, তাহাদের সমস্ত পাপ মোচন হইবেক এবং তাহার! অস্তে শিবলোকে বাস করিবে। অগ্য হইতে এই জলাশয়ের নাম “বিন্ু-সরোবর” হইল

গঙ্গ। প্রভৃতি প্রভুর আজ্ঞা শিরৌধাধ্য |

গোদীবরী হে দেব! আমি অবলা স্ত্রীলোক 1 আপনার আজ্ঞ! অবহেলা করিয়! বড়ই 'অন্তায় কাধ্য করিয়াছি, অতএব আমায় ক্ষমা! করুন

(স্তব) হে দেব! তুম সকল দেবতার পুঁজশীয়, ভোম!য় ননস্কার তুমি বিষপান করিয়া 'ত্রভুবন রক্ষ! করিয়াছ, তোমায় নমস্কার তুমি স্ত্রী জাতির মান বাঁড়াইবার জন্ত সুরধুণীকে মস্তকে ধারণ করিয়াছ, তোমায় নমস্কার। যদি আমার অপরাধ ক্ষমা না করেন, আপনার সম্মুখে আমার পাপ প্রাণ পরিত্যাগ করিব।

হর। হে স্থলোচনে! যখন আ!ম অভিশ।প দিয়াছি, তখন আমার কথা মিথ্য। হইবার নহে $ তবে ঘে সময় সিংহরাশিতে বৃহস্পতির সঞ্চার হইবে, কেবল দেই সময়ের জন্ত তুমি পবিত্র! হইবে অর্থাৎ সে সময়ে তোমার সলিলে স্নান তপণাদি করিলে লোকে মোক্ষ ফল প্রাপ্ত হইবেক।

গোদাবরী। হায় হায় আমি কি সব্বনাশের কার্য্য করিয়াছি আমার তুল্য পাপীয়সী ত্রিভুবনে আর কেহ নাই।

গঙ্গা সথি! চল আর ভাবিয়া কি করিবে ? যাহ আৃষ্টে ছিল, তাহাই ঘটিয়াছে ) সমস্তই কপালের্‌ লিখন) নতুবা তোমার ছূর্বদ্ধি হইবে কেন? মদন উহার কোপানলে পুড়িয়াছিল, তাহ! জান।

গোদাবরী মদনের দশ! যদি আমার হত) ভাল হত, তা হলে বিশ্বমগুল হইতে আমার নাম লোপ পেত।

দ্বিতীয় অঙ্ক ২১

জে স্৯ শর শপ রসি উল সর হা হর শর সা সর

ভর। গৌোঁদাবরি! মার কাতর! হইওন| )' আমি বর দিতেছি, শ্নানকালে যে ব্যক্তি অন্তান্ত তীর্ঘদিগের সহিত তোমার নাম ন। লইবে তাহার শরীর পবিত্র হইবেক না।

উমা। হে দেব! যদি অভয় দেন, তাহা হইলে আমার আর একটি প্রার্থনা আছে, নিবেদন করি।

হর! প্রাণেশ্বরি ! তোমার এমন কি প্রার্থনা আছে, যাহ! প্রকাশ করিবার জন্য এত অনুনয় বিনয় করিতেছ ? তোমাকে অদেয় আমার কি আছে?

উমা নাথ! আমার ইচ্ছ! এই স্থানটি ষেন মৃহাভীর্ঘ রূপে পরিণত হয় আপনি ভুবনেশ্বর রূপে চিরদিন এখানে থাকিবেন, 'আমি আপনার সেবা করিব।

হর। আর তুমি ভূবনেশরী ব| গোপালিক রূপে আমার সঙ্গে সঙ্গে

থাকিবে।

৯০১২ ২2৮-

তৃতীয় অস্ক।

প্রথম দৃশ্য | নি রাজ স্ভা রাজা মন্ত্র! গত রাত্রে আমি এক অপূর্ব স্বপ্ন দর্শন করিয়াছি, সে কথ! মনে হলে এখনও গাত্র রোমাঞ্চিত হয়! মন্ত্র! মহারাজ ! স্বপ্ন কেবল অমুলক চিন্তা মাত্র; দিবাভাগে আপনি নানা কার্যে ব্যস্ত থাকেন নান! রকম দৃশ্ত দেখেন, সে কারণ আপনি কোন প্রকার স্বপ্ন দেখিয়া থাকিবেন। রাজা। ন!মন্ত্রী! সামান্থ স্বপ্ন নহে, যদি সামান্ত হইবে তাহ! হইলে আমি এত উল! হইব কেন ?

মন্ত্রী। মহারাজ! কি প্রকার শ্বপ্প দেখেছেন প্রকাশ করিয়া! বুন, আমর! তাহা শ্রবণ করিবার জন্য অধৈর্য হইয়াছি।

তৃতীয় অঙ্ক ২৩

বিদুষক। মন্ত্রী মহাশয় ! মহারাজ যেকি স্বপ্ন দেখেছেন, তাহ! আমি বেশ বুঝতে পেরেছি। রাজা! রাজড়ার! আর কি খ্বপ্ন দেখ্‌বেন্‌ * যেন কোন বনে শিকার করতে গেছেন, সেখানে এক অপূর্ব অভাবনীয় নুন্দরীকে দেখতে পেয়েছেন, মহারাজ তাহাকে ধরবার জন্য চেষ্টা কচ্ছেন, তিনি কিন্তু সরে পড়েছেন। রাজী সখ! ! তোমার সকল কথাই রহস্তে পরিপূর্ণ, তোমার মনে চিন্তার লেশ মাত্র নাই, তাই তুমি সকলকেই সুখী মনে কর? কিন্তু এই পৃথিবী মধ্যে চিস্তাঁবিহীন ব্যক্তি করজন 'মাছে বল দেখি? বিদুধষক। মহারাজ! আপনি যা বল্লেন তাহা ষে একেবারে অসতা। তা আমি বল্‌তে পারিনা ; কারণ যদি ২৩ দিন আমি সন্দেশ খাইতে না পাই, তা হলে আমার মনেও চিন্তার উদ্রেক হয় বটে। রাজা। তোমার যদ্দি পেট খালি থাকে, তবেই তোমার চিন্তার উদ্রেক হয়; নচেৎ তোমার আর ভাবন!| কিসের ? বিদূষক | মহারাজ ! কথা বল.বেন্‌ না, আমার কি গুদু ভাবন! হয়? ভাবনার সঙ্গে মহা ভয়ও আছে। রাজা সেকি তুমি আমার প্রিয় সখা তোমার আবার ভগ্ন কি? বিদূষক। মহারাজ! শুধু কি আমার ভয় করে, ভয়ে যে আমর প্রাণ ধড় ফড় করে, তখন আমি কিসে যে প্রাণ রক্ষ। কর্‌বে! চক্ষু বুজিয়ে আর ভগবানের নাম করি। রাজা সখা! তুমি কাকে এত ভয় কর, আমার প্রকাশ করে বল, আমি ভাল বুঝতে পার্ছি ন!। বিদুধক। তা! মহারাজ ! আপনারা সব কথা সহজে বুঝ.তে "পার্বেন কেন ? সব কথ! গরীব লোকের! সহজে বুঝ.তে পারে সে কথা আর কি বলবো, ত| না বললে আপনারা ছাড়বেন না, তবে

২৪ কৃত্তিবাস বিমদ্দিনী ব! ভূবনেশ্বরী |

শপ পপ পি আপস পপ পপ প্র পি জপ পা | পর

ব্লি,--যখন ত্রাক্গণী নথ নাড়া দিয়ে ঝন্কার করে উঠেন, তখন মহারাজ! আমাতে কি আর আমি থাকি? বাপরে সে যেন উগ্রচণ্তীর মৃত্তী ধরে আমাকে সংহার করতে আসে তখনই আমার চিন্ত/ মহা ভয় হয়।

রাজা তা সখা! তুমি বলে এত দিন বেঁচে আছ, আমাদের উপর যদি রকম অত্যাচার হত. তাহা হ'লে আমরা এর মধ্যে অনেকবার মর্তাম ; এখন সব কথা পাক; হ্বপ্পের কথা মনে হলে, এখনও আমার মন প্রাণ আনন্দে নৃত্য করে।

বিদুষক। তা মহারাজ ! কি স্বপ্ন দেখেছেন্‌ বলেই ফেলুন না ? এই বলি এই বলি করে আমাদিগকে আ'র কষ্ট দিচ্ছেন কেন? দেখুন দেখি মন্ত্রী মহাশয় শ্বপ্পু শোন্বার -জন্তাই হউক আর খাইবার জন্তই হউক্‌ কেমন ই! করে 'নাপনার দিকে চেয়ে রয়েছেন !

মন্ত্রী। বিদূষক ! সকল সময়ই কি পরিহাসের সময় ? দেখ.চেন্‌ না মহারাজ হবপ্পু দেখে পর্য্যন্ত কিরূপ ব্যক্ত হয়েছেন £ তাহার মনের স্থিরতা নাই, স্বপ্লের আগা গোড়া শোন পরে যা বলতে হয় বল।

রাজা মন্ত্রিবর! গতরাত্রে শয্যায় যাইবার পুর্বে আমার মনে নানা রক- মের চিন্তা আসিয়া উপস্থিত হইল, কিন্তু একটি বিষয় ক্ষণমাত্র উদয় হইয়া! ততক্ষণাৎ লোপ পাইতে লাগিল ইহার কারণ আমি কিছুতেই স্থির করিতে পারি নাই, অনেকক্ষণ পরে আমার তন্দ্রা আসিয়া উপস্থিত হইল। দেখিলাম যেন আমি এক নিবিড় অরণ্যে মধ্যে অতি কষ্টে ভ্রমণ করিতেছি, আমার গাত্রে বৃক্ষের কণ্টক বিদ্ধ হইতেছিল, এমন সময় সম্মুথে এক শ্বেতবর্ণ মুদ্তির আবিভাব হইল, তাহার জ্যোতিতে আমার চক্ষু মুদ্রিত হইয়া আসিল, তখন সেই মুত্তি আমাকে অভয় দান দিয়া কহিল, তোমার কোন ভয় নাই, তুমি চক্ষু উন্মীলন কর, আমায়

তৃতীয় অঙ্ক ২৫

পপ মস আবি সপ শট পি পপি রি হন এত

সরি লা আসি

দেখিতে পাইবে; তাঁহার কথা মত যেমন আমি চক্ষু উন্মীলন করিলাম, অমনি দেখিলাম মস্তকে জটাজুট, তাহার উপর ফণী, পরিধানে ব্যাত্ব চর্খ, গলে হাড়ের মালা মূর্তি দেখিয়া! আমি উহার চরণতলে পড়ি- লাম; তিনি কহিলেন, বযাঁতি ! তোমার রাজোর দক্ষিণ দিকে কণ্টক পরিপূর্ণ অরণা মধ্যে থাকিয়া আমি বড়ই কষ্ট পাইতেছি, সেই স্থান পরিষ্কার করাইয়া আমার থাঁকিবার স্থান নিশ্শীণ করাইয়া! নাও; আমা- দের আঁর কণ্টক যন্ত্রণা সহা হয় না। আমি “যথা আজ্ঞা” বলিয়া উঠিয়া চাহিয়া দেখিলাম ঘে, কেহ কোথাও নাই; আমি আমার শয্যার পড়িয়া আছি।

মনত্রী। মহারাজ ! স্বপ্ন যে অদ্ভুত অভাবনীয়, তাহার আর সন্দেহ নাই) ইহা দেবদেব মহাদেবের আদেশ; কিন্ত তিনি কোন্‌ স্থানে আছেন, অন্বেষণ করিয়! বাহির কর! বড় কঠিন।

বিদৃষক। মঙ্তারাজ ! মন্ত্রী মহাশয়ের কথ! গুন্লেন উনি মনে করে ছিলেন রাজা রাজড়ার! যে সে স্বপ্পী দেখেন | বাবা, বসে বসে কেবল ঘাড় আর পাক দাড়ি নেড়ে মোটা মহিনা খেম়্ে আসচেন, যদি ভূঁতনাথ কোথায় আছেন খুঁজে বার করতে না পারেন, তাহলে চাকরি থেকে তাড়াব; তা ছাড়া যা কিছু সম্পত্তি করে নিয়েছেন, তাহার মধো কিছু না কিছু আমার হাতে পড়বেই পড়বে, 'তা থেকে ছু এক খানা এবার করে নেবো

রাজ! সখা! তুমি পাগল হলে নাকি? বাবা কোথায় আছেন, সেই স্কান ঠিক করবার জন্য আমর! ভাবচি, আর তুমি পাগলের মত ঘা তা বকৃ্চ। আচ্ছা, তোমার উপর প্র স্থান বাহির করিবার ভার 'দেওয়! গেল; যদি খুজে বাহির কর্তে পার, তা হলে তোমার ব্রাঙ্গণীর গা ভরা গহন! দেব এবং ৩৪টী নথ শৈয়ার করাইয়। দিব।

২৬ কুত্তিবাস-বিমর্দিনী ব! ভূবনেশ্বরী

০০০০ স্টপ শপ শি স্পরসিউপিি এিপর জল পে আপি পি পা | কাত স্টপ পিন শি আপ পট শক পট সপ কি শপসিজপি্ শচসী স্পা শী সত তস্পিা জীপ সরি জি ওলি সরি শন পিল ওটি শর পরি পিসপর্ আর ছিলি পর পিপি শী শি লা নদ

বিদূষক। (স্বগত ) বাবা পরের মন্দ করতে গেলে নিজের মন্দ আগে হয়। ( প্রকাগ্ঠে) তা মহারাজ, আমার উপর যখন আপনি ভার দ্রিতেছেন, তখন আমি আর না বলতে পারি না; তবে ৪91৫ দিন আমি কোথাও যেতে পারব না; আমার পেট্টা একটু খারাপ হয়েছে তা মন্ত্রামহাশয় আমাদের খুব বিচক্ষণ, উনি ইচ্ছা করলে এর উপায় করে দিতে পারবেন। আমি উপস্থিত আছি মহারাজ---

রাজা। মন্ত্রী! তুমী পাগলা ব্রাহ্মণের কথায় দুঃখিত হইও না) এক্ষণে কি উপায়ে আমর! সেই স্থান অন্বেষণ করিয়! বাহির করিতে পারিব, তাহার চেষ্টা করিতে হইবে।

মন্ত্রী। মহারাজ! আপনি স্বপ্সে দেখেছেন, এখান হইতে দক্ষিণ দিকে দেবদেব শূলপাঁণি আছেন; তিনি জলাভূমিতে কাচ বাস করেন্‌ না, হয় শ্মশানে, ন! হয় জঙ্গলময় পর্বতে আছেন | এস্থান হইতে সামান্ত দুর দক্ষিণ দিকে যাইতে হইলে, অনেক নদনদী পার হইয়া জঙ্গলের মধ্য দিয়া যাইতে হইবেক | এখন শীতকাল সময় স্থান হইতে যাত্রা করিতে হইবে। জঙ্গল কাটাইয়া নদী পার হইয়! যাহাতে শীত্র দুর্গম পথ অতিত্রম করিয়া যাইতে পারা যায়, তাহার বন্দোবস্ত করিব।

ছিতীয় দৃশ্য ন্ুবর্ণকোট পর্বতের নিম়্ে বিন্দুসাগর |

১ম সৈশ্ত বাপরে এমন কষ্ট জীবনে কখনও ভোগ করি নাই, মর্তে মরতে যে কতবার বেঁচে গেলাম তা বলা! যায় না; আমার ইস্তিরির কপালে পিছের দেখচি অনেক দিন থাকবে ; কেননা, কখন বা বাঘ

তৃতীয় অঙ্ক ২্ণ

ভালুকের সাম্নে কখন বা কুমীরের পেটের ভিতর গিয়েছিলুম আর কি।

২য় সৈম্ত। তুই ভাই যাহক বেটে করে অনেকবার আমোদ আহ্লাদ করে নিয়েচিস্‌; আমার দেখ. চি জীবনে আর বে করা হুল না কারণ, এই মাঘ মাসে বে হয় হয় অমনি কিনা! মন্ত্রী মহাশয়ের হুকুম হলো তিন দিনের মধ্যে বেরুতে হবে। বাঁবা এবার যদি বেঁচে ফিরে যাই, ত৷ হলে দেশে গিয়েই বিয়ে করে ফেলব আর আমার প্রিয়সীকে সঙ্গে করে নিয়ে অন্য রাজার দেশে গিয়ে বাস করব।

ওয় সৈম্ত ভাই তুইযা বললি এমন আর কেউ বলে না; আমি এত বড় হলুম কিন্ত কাহার কাছে এমন কথা শুনি নাই। রাজ! বড় ধার্দিক, এর 'আমলে যুদ্ধ নাই মারামারি নাই, আমরা যেন সকলে বসে বসে রাজার বড় ঠাকুরপাদার মত সেব! থাচ্চি। সবেমাত্র জঙ্গলের ভিতর দিয়ে সামান্ঠ দূর এসেছি, আমাদের জঙ্গল কেটে কষ্টও কর্তে হয় নাই কেবল রাধ বাড় আর খাও এইত কাজ। তুই যেবল্লি, অন্ত রাজার রাজত্বে তোর গিন্নিকে নিয়ে গিয়ে সুখে ঘরকন্ন।! করবি, আচ্ছ' মনে কর, ধরকল্না! করচিন্‌ এমন সময়ে, রাজার দেশ অন্ত গাজ। এসে আক্রমণ করলে! ; তখন ?কি করব? কিন্বা যদ্দি রাজার হুকুম হয় অমুক জায়গায় যুদ্ধ করতে যেতে হবে, তখন কি

কর্বি ? ২য় সৈন্ত। 'ওরে ভাই আমায় মাপ কর, আমি অত তলিয়ে বুঝিনে ? বা মনে এল তাই বলে ফেললুম॥। যার সঙ্গে আমার বে হবে তার সঙ্গে ছেলেবেল৷ থেকে আমার ভাব ; আমর! এক লঙ্গে খেল! করেছিলুম ভাই তোদের পায়ে পড়ি সব কথ! যেন কাহারও কাছে বলিদ নি। ১ম সৈগ্ত। না ভাই আমর! কাহারও কাছে এসব কথা বলব ন]।

২৮ কৃত্তিবাস-বিমর্দিনী বা ভূবনেশ্বরী |

আপন আপনি ঘরের কথা হচ্চে, সব কথা কি অপরের কাছে বলা যায়

২য় সৈম্ত। চুপ কর ভাই, সেনাপতি যহাঁশয় এদিকে আসচেন।

সেনাপতি তোমরা সাবধান হইয়া! পাহারা দাও, এখানে বড় বাঘ ভল্লুকের উপদ্রব; যাহার নিকট হইতে একটি গাভী বা অশ্ব যাইবেক তাহার প্রাণদগ্ড করিব

সৈম্তগণ। যে আজ্ঞ সেনাপতি মহাঁশয়।

রূজা। প্রায় বৎসরাবধি নদনদী পার হয়ে জঙ্গল কেটে এই সমস্ত সৈম্ত সামন্ত বড়ই কষ্ট পাইতেছে আহা তাহারা তাহার আত্মীয় স্বজনকে পরিত্যাগ করে, আমার জন্যই না জানি কতই যান সহ করিতেছে; কিন্তু কৈ আমার স্বপ্ের দেবতার দর্শন পাইলাম না। আমার আর ছার ভ্রীবন বক্ষ করিবার 'আবশ্তক নাই

মন্ত্রী। মহারাজ আপনি কাতর হবেন না, আপনার যেবধপ দয়ার শরীর ত্রিশূলী শীঘ্ঘ আপনার মনোবাঞ্থধ পুর্ণ করিবেন। যে ব্যক্তি নিজের কষ্টের জন্ত কাতর ন৷ হইয়া, ভূত্যদিগের সামান্ত ক্লেশ হইলে হৃদয়ে দারুণ কষ্ট অন্ুুভন করেন, তীহাঁকে যি শঙ্কর দেখা না দেন, তবে কাহার দয়াময় নামে যে কলঙ্ক হইবে। মহারাজ ! আমার বোধ হয় আমাদের অভীষ্ট স্থানে আসিয়! পহু'ছিক্াছি। এস্থান যদিও হিংশ্র জন্ত প্রস্থৃতিতে পরিপূর্ণ, কিন্তু এখানে আসিয়া! অবধি আমার হৃদয় যেন আনন্দে নৃত্য করিতেছে

রাজা মন্তিবর ! কেন তুমি আর আমায় বুথ! প্রবোধ দিতেছ ? আমি পঙ্গু ভুইয়া সাগর পার হইবার চেষ্ট! করিতেছি, বামন হইয়া চন্দ্র স্পর্শ

করিতে উদেঘাগ করিতেছি। যেমন যুগের পিপাসায় কাতর হইয়

দুরে মরুভূমি দর্শনে জলাশয় মনে করিয়৷ বারি পানের আশায় সেই

তৃতীয় অস্ক। ২৯ স্থানে ছুটিয়! যায় এবং অবিলম্বে মৃত্যুমুখে পতিত হয়, আমার চেষ্টাও সেইরূপ হইবেক দেখিতেছি।

মন্ত্রী। মহারাজ! অ(পনি জ্ঞ।নবান, আপনি যদি ্রন্প কাতর হন, তাহা হলে আমাদের উপায় কি হইবে? 'আঁমাদের এত চে পরিশ্রম কি সমস্তই বৃথ। হইবে এই বৃহৎ জলাশয় দেখে বোধ হচ্চে, আমা- দের স্বপনের দেবতা নিকটেই আছেন রাজা। মন্ত্রী! আমার শবীর অথশ হয়ে আমায় আব আমি ভ্রমণ করিতে পারি না; আমি এখানে বসে বিশ্রাম কি 'এবং দেবদেব আাশুতে!ষের আরাধনা করি; যদি তিনি 'অধমঞ্চে দর্শন দেন উত্তম-নতুবা ছার জীবন এখানেই পরিন্যাগ করিব হে অনথনাথ তোমায় নমস্কার হে বিশ্বনাথ হে শু তোমার নমস্কার হে নাদি পুরুষ তোমায় নমস্কার হে দয়।ম তোমায় নমস্কার হে কপানিপান ভোদায় ননস্কার | হে প্রভু আমার প্রতি সদয় ভয়ে দশন দিন। হর। হে ভক্ত তোমার প্রতি নামার দয়! চিরকাল ভাছে, নতুবা শ্বপ্রে তোমায় দেখ! দিব কিন্ত ; তুমি আমার জন্ত দারুণ কষ্ট সহা করিয়! এস্কানে আসিয়াছ ; অতএব আমার নিকট বর প্রার্থনা কর। রাজা। দয়াময়! যদি ভক্তের প্রতি তোমার এরূপ কুপা না হবে, তবে লোকে তোমায় দয়াময় বলে ডাকবে কেন” প্রভু যদি বর চাহিবার জন্য আদেশ করিলেন, তখন আমায় এই বর দিন ধেন চিরদিন আপ- নার সেব৷ পুজা করিতে পারি। হর। ভক্তরে! তোমা: মনোবাঞ্চ! পুর্ণ হবে। তুমি এই অরণ্য কাটিয়!

৩০ কুত্তিবাস-বিমদ্দিনী বা ভূবনেশ্বরী।

মহানগরীতে পরিণত কর) আর আমার পার্ধতীর জন্ত মন্দির নির্মাণ করাও; আমার বরে কোন কার্যে ভোমার বিদ্ধ ঘটিবেক না

রাজা হে আশুতোষ ! যদি আপনি সদয় হুইয়া আমায় দর্শন দিলেন এবং আদেশ করিলেন, আপনার মা সবানীর জন্ঠ মন্দির নির্মাণ করিতে ; কিন্তু কৈ মার দর্শন পাইলাম না; তিনি কি অধম সন্তানকে দেখা দিবেন না? পাষাণীর মেয়ে বলে কি তিনিও কি পাষাণী হবেন ? মা আমার দয়াময়ী ; তিনি কি আমার প্রতি সদয় হবেন না? মাগো তোম।র কি হতভাগ্য সন্তানের উপর দয়! হবে না? আমি তোমার কাছে যতই কেন দোষ করি না, কিন্তু মা হয়ে ছেলের উপর বেশাক্ষণ রাগ করে থাকতে পারবে না) যদি দয়া করে দেখা ন৷ দেন, তবে আজ থেকে তোমার দয়াময়ী নাম ভবধাম হইতে লোপ পাইবে।

উমা ॥। ভক্তরে, তোমায় দেখ! না! দিয়ে আমি কি থাকতে পারি? যে এক- বার আমায় ভক্তিভরে ম! বলে ডাকে, তাকে আমি তখনই কোলে করে লই। ভক্তের, প্রাণে সামান্ত কষ্ট হলে আমার হৃদয়ে যেন শেল বিদ্ধ হয়।

রাজা কেও পাষাণীর মেয়ে পাষাণি! ভুমি এসেছ? কেন এলি মা? তোর সন্তান মা ম! বলে মরে যাবার পর এসে তারে কোলে করে নিলিনি কেন ম1 হয়ে সম্তানকে কি এত কষ্ট দিতে হয় যখন এসেছ তখন আমার মনোবাঞ্ছ! পুর্ণ হয়েছে মাঁ! বাবার আদেশ হয়েছে যে, তিনি এখানে থাকৃবেন ; তুমি এখানে থাকবে কিনা বল? কারণ তোমাকে বিশ্বাস নাই; তুমি কখন উগ্রচণগ্ডা মূর্তি ধরে দৈতাবংশ ধ্বংশ করতে যাবে; কখন বা অন্ত কোন ভক্তের প্রেমে পড়ে আমায় ত্যাগ করবে $ এসন কি তুমি বাবাকেও ত্যাগ করে যেতে পার।

তৃতীয় অঙ্ক। ৩১

উমা! না যাঁতি, তোর প্রেমে আমরা বাঁধা পড়েছি তোর ভক্তির সীমা নাই। এই যে জলাশয় দেখিতেছিস, কৃত্তি বাস নামক রাক্ষস ছয়কে দমন করিয়! পরিশ্রাস্ত হইয়া ইহার বারি আমি পান করিয় তৃপ্তি লাভ করিয়াছি এই জলাশয়ে সমস্ত তীর্থের বিন্দু বিন্দু জল আছে। যে জলে নান তর্পণাদদি করিবে তাহার সকল পাপ মোচন হইবেক, অস্তে শিবলোকে বাদ করিবে এই স্থানে ত্রিশূলী ভুবনেশ্বর রূপে আমি তুবনেশ্বরী বা গোপালিক। রূপে বিরাজমান করিব আমাদের বরে তুমি তোমার বংশধরের! এরপ সুন্দর মন্দির নির্মাণ করিৰে যে ত্রিভূবনে তাহার সদৃশ মন্দির আর দেখিতে পাওয়া যাইবেক ন!।

উভয়ের অন্তধান।

রাজা। মন্ত্রিবর ! আমাদের মনোবাঞ্। এতদনে পুর্ণ হল। ত্রিশূলীর মার আদেশ হইয়াছে বে ত্বরায় সমস্ত অরণ্য কাটিয়া নগররূপে পরিণত করা এবং মন্দির নির্মাণ করাইয়া বাব। মাকে স্থাপিত করা। তোমায় আর অধিক কি বলিব, যাহাতে সমস্ত কাষ্য শীপ্ব সুচাকরূপে সম্পন্ন হয় তাহার আয়োজন কর।

মন্ত্রী। ম্হারাজেরঃআজ্ঞ! শিরোধার্ধ্য।

তৃতীয় দৃশ্য

প্রমোদ উদ্যান গীত। রানী। সহচরি! প্রায় এক বৎসর গত হইল প্রাণনাথ ফিরে এলেন না; বো